Templates by BIGtheme NET
Home » অন্যান্য » সঙ্গীকে সন্দেহ করার প্রবণতা এড়াবেন কীভাবে?

সঙ্গীকে সন্দেহ করার প্রবণতা এড়াবেন কীভাবে?

ক্রাইমভিশনবিডি ডেস্ক:

 

বর্তমান সময়ে অনেক সম্পর্কের মাঝেই সঙ্গীকে সন্দেহ করার প্রবণতা দেখা যায়। সম্পর্কের মাঝে অনেক সময় সঙ্গী তৃতীয় কারও কথা বললে সন্দেহ হয়, আবার অন্যের সঙ্গে কখনও হেসে কথা বললেও অনেকে সন্দেহ করে থাকেন। কেউ তো আবার সন্দেহ করে সঙ্গীর আড়ালে তার ফোনও চেক করে থাকেন। এ রকম নানা বিষয় নিয়ে ঝামেলা হতে দেখা যায় অনেক সম্পর্কের মাঝেই।

সম্পর্কের এমন বিষয়ে মনোবিদরা বলেন, প্রতিটি সম্পর্কেই কিছু ছাড় দেওয়া উচিত। কারণ প্রতিটি মানুষেরই নিজের কিছু ব্যক্তিগত বিষয় থাকে। কখনও সঙ্গীকে নিয়ে সন্দেহ তৈরি হলে বা দ্বন্দ্ব থাকলে শুরুতেই সে বিষয়টি পরিষ্কার করা জরুরি।

 

সঙ্গীকে সন্দেহ করার প্রবণতা থাকলে কিছু বিষয় অনুসরণ করতে পারেন। যেমন-

 

১. সঙ্গীকে অতিরিক্ত সন্দেহ করার বিষয়টি ঘটে মানসিক সমস্যা থেকে। যারা এমনটি করেন, তারা ভাবেন যে সঙ্গী হয়তো তাকে ছেড়ে চলে যাবেন। আপনার সঙ্গেও এমন হয়ে থাকলে আগে সমস্যাটি বোঝার চেষ্টা করুন। আপনার আচরণগত কোনো সমস্যা থাকলে সেটি পরিবর্তনের চেষ্টা করুন।

 

২. অনেক সময় যোগাযোগের সমস্যা থেকেও সন্দেহ দেখা দিতে পারে। স্বাভাবিকভাবে সমস্যা না বোঝা গেলও মনের ভেতরে সমস্যা হয় অনেকের। এমন হলে সঙ্গীর সঙ্গে মন খুলে কথা বলা কিংবা কোনো কিছু বোঝানো যায় না। তখন সমস্যা আরও বাড়তে থাকে। তাই সম্পর্কে নিজেদের মাঝে বোঝাপড়া বৃদ্ধি করতে হবে।

 

৩. প্রতিটি মানুষেরই চাওয়া-পাওয়া, কথা ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। সম্পর্কের ক্ষেত্রে একে অন্যের চাহিদা ঠিকমতো বুঝতে না পারা থেকে অনেক সময় সমস্যা সৃষ্টি হয়। আপনি সঙ্গীকে যেমন ভাববেন, সঙ্গী সবসময় সে রকম নাও ভাবতে পারেন। এমন ক্ষেত্রে সম্পর্কে সন্দেহ কাজ করতে পারে।  তাই এ ধরনের বিষয় নিয়ে দুজনে আলোচনা করতে পারেন।

 

৪. সম্পর্কের ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হচ্ছে সময়। সঙ্গীকে সময় দেওয়ার বিষয় নিয়ে অনেক ক্ষেত্রে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। সঙ্গী যে সময়টা আপনার কাছে চাইছে, সেটি দিতে না পারা অথবা আপনার সঙ্গীর কাছ থেকে যে সময়টা চাইছেন তা না পাওয়ার মতো বিষয় হতে পারে সমস্যার কারণ। দুজনে বোঝাপড়া করে নিজেদের সময় দিন।

 

৫. অর্থনৈতিক কারণেও সম্পর্কে অনেক সমস্যা আসে। এটি অন্যতম একটি বড় কারণ। তাই প্রথমেই এ বিষয়টি নিয়ে নিজেদের মাঝে কথা বলে রাখা উচিত। নইলে সঙ্গীর কাছ থেকে আপনি যা আশা করেন, তা যদি পূরণ না হয় তা হলে অশান্তি ও ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়।

 

৬. যে কোনো একজনের বিশেষ মানসিক সমস্যা থাকতে পারে অথবা দুজনের মানসিকতা একদমই আলাদা হতে পারে। এমন মনে হলে দুজনে খোলামেলা আলোচনা করুন। শুরুতেই এটি ঠিক না হলে পরে তা অনেক বড় আকার ধারণ করতে পারে।

Facebook Comments