Templates by BIGtheme NET
Home » জাতীয় » ট্যানারি মালিকরা চামড়া সংগ্রহে তৈরি

ট্যানারি মালিকরা চামড়া সংগ্রহে তৈরি

 

নিজস্ব প্রতিনিধি:

 

পবিত্র ঈদুল আজহা করোনা মহামারির মধ্যে উদযাপিত হচ্ছে। সব জায়গায় চলছে পশু কুরবানি। এছাড়া দেশে বছরজুড়ে যত পরিমাণ চামড়া পাওয়া যায় তার অর্ধেকের বেশি আসে এসব কুরবানির পশু থেকে। প্রতি বছর এ সময়ের অপেক্ষায় থাকেন ট্যানারি মালিকরা।কিন্তু আর গত দুবছরের তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে তারা কুরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহে আগেভাগেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখার কথা জানিয়েছেন।

 

 

এভাবেই চামড়া সংগ্রহে নিজেদের প্রস্তুতির কথা বললেন বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মো. শাহীন আহমেদ।

 

এছাড়া শাহীন জানান, কুরবানির ঈদে চামড়া সংগ্রহে প্রয়োজনীয় অর্থায়ন, লবণ মজুদ ও কর্মী-শ্রমিক প্রস্তুত রয়েছে। এছাড়া মাঠ পর্যায় থেকে ট্যানারিগুলো মূলত ঢাকা ও ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে সংগ্রহ করা কাঁচা চামড়া প্রক্রিয়াকরণ করবে। যার জন্য এসব এলাকার মাদরাসাভিত্তিক যারা উদ্যোক্তা চামড়া সংগ্রহ করবেন, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে আর্থিক যোগান দেয়া হয়েছে।

 

আশা করছি সবমিলিয়ে প্রায় ৯০ লাখ চামড়া সংগ্রহ করার চেষ্টা থাকবে। যারমধ্যে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে আসা চামড়া প্রক্রিয়াকরণে প্রয়োজনীয় লবণ এবং কর্মী-শ্রমিকদের প্রস্তুত করা হয়েছে।

দীর্ঘদিন চামড়া ব‌্যবসার সাথে জড়িত পুরান ঢাকার নবাবপুরের বাসিন্দা আফতাব উদ্দিন জানান, আমরা প্রস্তুতি মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগেই শেষ করেছি।আমরা বুধবার আগে ট্যানারিতে যাব। তারপর ট্রাকে করে পুরান ঢাকার দুইটা মোবাইল সেন্টার থেকে আমরা চামড়া সংগ্রহ করব।

 

তবে আড়ত ও ট্যানারিগুলোর জন্য ঢাকায় লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরু বা মহিষের চামড়ার দর ৪০ থেকে ৪৫ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তাছাড়া গত বছর এই দর ছিল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।

 

এছাড়া ঢাকার বাইরে লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরু বা মহিষের চামড়ার দাম হবে ৩৩ টাকা থেকে ৩৭ টাকা, গতবছর যা ২৮ থেকে ৩২ টাকা ছিল।

 

তবে দেশে লবণযুক্ত খাসির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১৫ থেকে ১৭ টাকা, অন‌্যদিকে বকরির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১২ থেকে ১৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

তাছাড়া গতবছর খাসির চামড়া ১৩ থেকে ১৫ টাকা এবং বকরির চামড়া ১০ থেকে ১২ টাকায় বেঁধে দিয়েছিল সরকার।

Facebook Comments