Templates by BIGtheme NET
Home » অন্যান্য » ছাত্রজীবনে মুরাদ হাসান মাদকাসক্ত ছিলেন: আবু ওয়াহাব আকন্দ

ছাত্রজীবনে মুরাদ হাসান মাদকাসক্ত ছিলেন: আবু ওয়াহাব আকন্দ

ক্রাইমভিশনবিডি ডেস্ক:

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে নিয়ে অশালীন কথা বলে মন্ত্রিত্ব ও দলীয় পদ হারিয়েছেন সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। এরপর থেকেই তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আসতে শুরু করেছে গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে। এবার জানা গেল আরেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। ছাত্রজীবনে এই মুরাদ হাসান মাদকাসক্ত ছিলেন বলে জানিয়েছে একটি সূত্র।

 

সূত্র জানায়, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) শাখা ছাত্রদলের ১৯৯৬-৯৮ কমিটির প্রচার সম্পাদক ছিলেন মুরাদ হাসান। সে সময় থেকেই তিনি অনেকটা বেপরোয়া ছিলেন। যখন যা খুশি তাই করতেন। বেশ কয়েকবার মদ্যপ অবস্থায় দেখা গিয়েছিল তাকে। ফেনসিডিলের নেশায় বুঁদ হয়ে থাকতেন। তাতে এতোই আসক্ত ছিলেন তিনি যে, মাদক কিনে টাকা না দিলে একদিন গাছের সঙ্গেও তাকে বেঁধে রাখার ঘটনা ঘটে।

 

কুরুচির অধিকারী সাবেক মন্ত্রী মুরাদের বিষয়ে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন তৎকালীন ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও বর্তমানে ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ।

 

এ সময় তিনি গণমাধ্যমকে জানান, ‘মুরাদ হাসান ময়মনসিংহে ছাত্রদল করতেন। সে সময় তিনি নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। বাগমারা এলাকায় মদ্যপ অবস্থায় দেখা যেত তাকে। ফেনসিডিল সেবন করতেন, যা সবারই জানা ছিল। তিনি যেখান থেকে ফেনসিডিল নিতেন, একদিন সেখানে গেলে ফেনসিডিল কেনার টাকা পরিশোধ করতে না পারায় তাকে বিক্রেতারা হাত-পা বেঁধে গাছের সঙ্গে আটকে রাখেন।

 

এরই মধ্যে দেশ ছেড়ে কানাডা যাত্রার উদ্দেশ্যে টিকেট কেটেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে। কেউ কেউ বলছেন, সরকারি ইঙ্গিত ছাড়া তিনি কিছুতেই দেশ থেকে বের হতে পারবেন না। এ সময় তারা বিতর্কিত এই মুরাদ হাসানকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানান।

Facebook Comments Box