Templates by BIGtheme NET
Home » প্রবাসী বাংলা » নেপানের ও পাকিস্তান বর্জন: হাসিনার প্রশংসায় ভারতীয় স্পিকার

নেপানের ও পাকিস্তান বর্জন: হাসিনার প্রশংসায় ভারতীয় স্পিকার

ভারতের লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মহাজান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে উন্নয়ন হচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করেছেন। এখন তার সুফল ভোগ করছেন তারা।
শনিবার রাজধানীর সোনারগাঁও ‘সাউথ এশিয়ান স্পিকার্স সামিট ২০১৬’-এর উদ্বোধনী দিনে তিনি একথা বলেন। দক্ষিণ এশিয়ায় টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসডিজি) বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, ভুটান, ভারত, মালদ্বীপ এবং শ্রীলঙ্কার স্পিকারদের নিয়ে এ সম্মেলন হচ্ছে। তবে শ্রীলঙ্কার ডেপুটি স্পিকার পথে থাকায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেননি। আর পাকিস্তান ও নেপালের স্পিকারদের আমন্ত্রণ জানানো হলেও তারা যোগ না দিয়ে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

এসময় সুমিত্রা মহাজান আরো বলেন, আইপিইউ এবং কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) মত দুটি পদের প্রধান বাংলাদেশে দুজন এমপি। এটি সত্যিই গর্বের বিষয়। বাংলাদেশে যে উন্নয়ন করছে এটি তার প্রমান। তিনি এসময় জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে ছোটবোন সম্বোধন করে বলেন, তিনি সিপিএ’র নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন নির্বাচিত হওয়ায় অভিবাদন জানাই । এছাড়া সাবের হোসেন চৌধুরী ভাইকেও অভিবাদন।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো খুবই জনবহুল । এজন্য এসডিজি বাস্তবায়ন করতে আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়। আর এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমাদের মত জনপ্রতিনিধিদের কাজ করতে হবে।
তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো শুধু ইতিহাস শেয়ার করে করে । আমাদের সংস্কৃতি, ভৌগলিক এবং আর্থসামাজিক অবস্থান প্রায় একই । এজন্য আমাদের একযোগে কাজ করতে হবে।

সম্মেলনের আলোচনায় পাঁচটি বিষয় প্রাধান্য পাবে। এগুলো হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ায় এসডিজির গুরুত্ব, এসডিজি বাস্তবায়ন ও অগ্রগতি পর্যালোচনায় পার্লামেন্টগুলোর ভূমিকা, এসডিজির স্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধি সংক্রান্ত গোল-৩ এর অধীন সুযোগসমূহ, তামাক মহামারির বর্তমান অবস্থা ও নিয়ন্ত্রণে কৌশল নির্ধারণ, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে তামাকের ব্যবহার কমিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় নীতিকৌশল প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন।

আইপিইউয়ের সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী । এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, আফগানিস্তানের স্পিকার আবদুল রৌফ ইব্রাহিমি, ভুটানের স্পিকার জিগমে জেংপো, ও মালদ্বীপের স্পিকার আবদুল্লাহ মশেহ মোহাম্মদ।

দুদিন ব্যাপী এ সম্মেলনের শেষ দিন আগামীকাল রোববার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রধান অতিথি হিসেবে থাকার কথা রয়েছে।

Facebook Comments